The Theory Of Communist Revolution

 

শ্রমিকশ্রেণীর সংগ্রামের মৌলিক তাত্ত্বিক ফসল হচ্ছে মার্কসবাদ । মার্কসবাদ-এর ভিত্তিতেই শ্রেণীসংগ্রামের সমস্ত শিক্ষাকে সুসমন্বিত এক সামগ্রিক কাঠামোয় সংহত করা সম্ভব । শ্রেণী সংগ্রাম অর্থাৎ উৎপাদিকা শক্তির বিকাশের দ্বারা নির্ধারিত সামাজিক কাঠামোয় অর্থনৈতিক স্বার্থরক্ষার সংগ্রামের বিকাশের মাপকাঠিতেই ইতিহাসের ব্যাখ্যা করে এবং পুঁজিবাদ উচ্ছেদের বিপ্লবী সংগ্রামে শ্রমিকশ্রেণীকে বিপ্লবী নেতৃত্ব ও শক্তির স্বীকৃতি দিয়ে মার্কসবাদ শ্রমিকশ্রেণীর দৃষ্টিভঙ্গী ও চিন্তা চেতনার সত্যিকার প্রকাশ ঘটাতে সক্ষম একমাত্র বিশ্বদৃষ্টিকোণ ও ব্যাখ্যায় পরিণত হয়েছে । তাই মার্কসবাদ বিশ্বের কোন বিমূর্ত,ধোঁয়াশাচ্ছন্ন অনুমান বা ব্যাখ্যা নয় । এর সম্পূর্ণ বিপরীতে মার্কসবাদ হয়ে উঠেছে প্রথমতঃ এবং প্রধানতঃ শ্রমিকশ্রেণীর সংগ্রামেরই এক হাতিয়ার । ইতিহাসে এই প্রথম শ্রমিকশ্রেণী হচ্ছে এমন একমাত্র শ্রেণী যে তার মুক্তি সমগ্র মানবসমাজের মুক্তির ভিত্তিতেই শুধু সম্ভব এবং তার সামাজিক আধিপত্য কখনোই কোন নতুন শোষণব্যবস্থার জন্ম তো দেয়ই না বরং সমস্ত রকম শোষণের অবসান ঘটায় । আর তাই কোনরকম অন্ধবিশ্বাস বা বিভ্রান্তি ছাড়াই বস্তুগত ও বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তিতে সামাজিক বাস্তবতাকে অনুধাবন করতে একমাত্র মার্কসবাদই সক্ষম।
সেজন্য শুরু থেকেই মার্কসবাদ হয়ে দাঁড়িয়েছেএমনএকমাত্র framework যে তার থেকেই এবং তার ভিতরেই বিপ্লবী তত্ত্ব বিকশিত হতে পারে,যদিও তা কোন নিশ্চল সীমাবদ্ধ মতবাদ তো নয়ই,বরং তার সম্পূর্ণ বিপরীত এবং শ্রেণীসংগ্রামের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও সজীব সম্পর্কের ভিত্তিতে ক্রমাগত নিজেকে সম্প্রসারিত এবং অতীতের তাত্ত্বিক সংগ্রামের সমস্ত সাফল্যকে অঙ্গীভূতকরে বিকশিত ও সমৃদ্ধ করে তুলেছে।